Home / মিডিয়া নিউজ / এক শট ৭ বার, ঘনিষ্ঠ দৃশ্যের পর কেঁদে ফেলেছিলেন কুবরা

এক শট ৭ বার, ঘনিষ্ঠ দৃশ্যের পর কেঁদে ফেলেছিলেন কুবরা

‘কুক্কু’কে মনে পড়ে? জনপ্রিয় ওয়েব সিরিজ ‘সেক্রেড গেমস’-এর একটি চরিত্র ছিল ‘কুক্কু’।

অর্থাৎ অভিনেত্রী কুবরা সাইত। সেখানে তিনি অভিনয় করেছিলেন নওয়াজুদ্দীন সিদ্দিকীর সঙ্গে।

এবার সিরিজের একটি অন্তরঙ্গ চরিত্রে অভিনয়ের দৃশ্য নিয়ে মুখ খুললেন তিনি।

এক সাক্ষাৎকারে কুববা বলেছিলেন, দৃশ্যটি সাতবার শুট করতে হয়েছিল। কারণ পরিচালক অনুরাগ

কাশ্যপের সাতটি ভিন্ন কোণ থেকে শট নেওয়া দরকার ছিল। শ্যুটিং যেন সুষ্ঠ ভাবে হয়, তার জন্য সবকিছু ঠিক আছে কিনা তা নিশ্চিত করতে সব কিছু খতিয়ে দেখেছিলেন পরিচালক নিজে।

সাক্ষাৎকারে কুবরা বলেছিলেন, প্রথম যেটা আমি টেক দিয়েছিলাম, উনি ফিরে এসে বললেন, ‘আমরা পরেরটার জন্য দ্রুত যাব।’ দ্বিতীয়টি, উনি বললেন, পরের বার আমরা আরও দ্রুত করব। তৃতীয়বার করার পর উনি ক্যামেরা নওয়াজের দিকে স্থানান্তর করলেন। এরপর আমরা অন্যভাবে করেছি। এবং সপ্তমবার, যখন আমি এটা করেছি… আমি ভেঙে পড়েছিলাম। আমি সত্যিই সেই সময়ে ভেঙে পড়েছিলাম। আমিও খুব আবেগপ্রবণ ছিলাম। তিনি আমার কাছে এগিয়ে এসে বললেন, ‘ধন্যবাদ। আমি তোমাকে বাইরে দেখতে পাব?’ তখনই আমি বুঝলাম দৃশ্যটি শেষ’।

এরপর নাকি কুবরা ভেঙে পড়েছিলেন। তিনি বলেন, ‘আমি মেঝেতে শুয়ে কাঁদতে শুরু করেছিলাম। আমি শুধু কেঁদেই যাচ্ছিলাম। নওয়াজ বলল, আমার মনে হয় আপনার বাইরে যাওয়া উচিত। আমার দৃশ্যের শুট এখনও বাকি আছে’। কুবরা হাসতে হাসতে বলেন, দৃশ্যে তার প্রবেশটা তখনও বাকি ছিল।

সালমান খানের ছবি ‘রেডি’তে একটি ছোট্ট চরিত্রের মাধ্যমে ডেবিউ করেছিলেন কুবরা। তবে সেক্রেড গেমসের সাফল্যের পরে তিনি খ্যাতি অর্জন করেছিলেন। এরপর থেকে তিনি ‘জওয়ানি জানেমান’ এবং ‘ডলি কিটি অর ওহ চামাকতে সীতারা’র মতো ছবিতে অভিনয় করেছেন। তিনি ‘দ্য ভারডিক্ট – স্টেট ভার্সাস নানাবতী এন্ড ইললিগাল’ এর মতো ওয়েব সিরিজেও অভিনয় করেছেন।‘কুক্কু’কে মনে পড়ে? জনপ্রিয় ওয়েব সিরিজ ‘সেক্রেড গেমস’-এর একটি চরিত্র ছিল ‘কুক্কু’।

অর্থাৎ অভিনেত্রী কুবরা সাইত। সেখানে তিনি অভিনয় করেছিলেন নওয়াজুদ্দীন সিদ্দিকীর সঙ্গে।

এবার সিরিজের একটি অন্তরঙ্গ চরিত্রে অভিনয়ের দৃশ্য নিয়ে মুখ খুললেন তিনি।

এক সাক্ষাৎকারে কুববা বলেছিলেন, দৃশ্যটি সাতবার শুট করতে হয়েছিল। কারণ পরিচালক অনুরাগ

কাশ্যপের সাতটি ভিন্ন কোণ থেকে শট নেওয়া দরকার ছিল। শ্যুটিং যেন সুষ্ঠ ভাবে হয়, তার জন্য সবকিছু ঠিক আছে কিনা তা নিশ্চিত করতে সব কিছু খতিয়ে দেখেছিলেন পরিচালক নিজে।

সাক্ষাৎকারে কুবরা বলেছিলেন, প্রথম যেটা আমি টেক দিয়েছিলাম, উনি ফিরে এসে বললেন, ‘আমরা পরেরটার জন্য দ্রুত যাব।’ দ্বিতীয়টি, উনি বললেন, পরের বার আমরা আরও দ্রুত করব। তৃতীয়বার করার পর উনি ক্যামেরা নওয়াজের দিকে স্থানান্তর করলেন। এরপর আমরা অন্যভাবে করেছি। এবং সপ্তমবার, যখন আমি এটা করেছি… আমি ভেঙে পড়েছিলাম। আমি সত্যিই সেই সময়ে ভেঙে পড়েছিলাম। আমিও খুব আবেগপ্রবণ ছিলাম। তিনি আমার কাছে এগিয়ে এসে বললেন, ‘ধন্যবাদ। আমি তোমাকে বাইরে দেখতে পাব?’ তখনই আমি বুঝলাম দৃশ্যটি শেষ’।

এরপর নাকি কুবরা ভেঙে পড়েছিলেন। তিনি বলেন, ‘আমি মেঝেতে শুয়ে কাঁদতে শুরু করেছিলাম। আমি শুধু কেঁদেই যাচ্ছিলাম। নওয়াজ বলল, আমার মনে হয় আপনার বাইরে যাওয়া উচিত। আমার দৃশ্যের শুট এখনও বাকি আছে’। কুবরা হাসতে হাসতে বলেন, দৃশ্যে তার প্রবেশটা তখনও বাকি ছিল।

সালমান খানের ছবি ‘রেডি’তে একটি ছোট্ট চরিত্রের মাধ্যমে ডেবিউ করেছিলেন কুবরা। তবে সেক্রেড গেমসের সাফল্যের পরে তিনি খ্যাতি অর্জন করেছিলেন। এরপর থেকে তিনি ‘জওয়ানি জানেমান’ এবং ‘ডলি কিটি অর ওহ চামাকতে সীতারা’র মতো ছবিতে অভিনয় করেছেন। তিনি ‘দ্য ভারডিক্ট – স্টেট ভার্সাস নানাবতী এন্ড ইললিগাল’ এর মতো ওয়েব সিরিজেও অভিনয় করেছেন।

Check Also

যে কারণে সিনেমায় এসেছিলেন হুমায়ূন ফরীদি

মঞ্চ থেকে চলচ্চিত্র অভিনয়ের সবখানে তিনি রাজত্ব করেছেন দুর্দান্ত প্রতাপে। কয়েক দশক অভিনয়ে তিনি মাতিয়ে …

Leave a Reply

Your email address will not be published.