‘প্রিয়া আমার প্রিয়া’ ছবির আলোচিত নায়িকা সাহারা এখন কোথায়

‘প্রিয়া আমার প্রিয়া’সহ একাধিক ছবির জনপ্রিয় অভিনেত্রী সাহারার চলচ্চিত্র জগতে পথচলা শুরু

হয়েছিল শাহাদাত হোসেন লিটন পরিচালিত ‘রুখে দাঁড়াও’ ছবির মাধ্যমে। অনেক পরিশ্রম করে ঢাকার

চলচ্চিত্রে নিজেকে প্রথম সারির নায়িকা হিসেবে নিজেকে প্রতিষ্ঠা করেন এই অভিনেত্রী। শাকিব খান এর সাথে তার জুটি সর্বাধিক জনপ্রিয়তা পায়।

২০০৪ সালে শুরু করেন অভিনয় জীবন। তবে পথের শুরুটা মসৃণ হয়নি। ‘রুখে দাঁড়াও’ প্রত্যাশা পূরণ

করেনি কিন্তু কিন্তু সাহারা সমালোচকদের দৃষ্টি কারতে সক্ষম হন। যদিও তার অতিরিক্ত সাবধানী পোশাকের কারণে সমালোচিতও হন কারো কারো কাছে।

দ্বিতীয় চলচিত্রে আর এই ভুল করেননি সাহারা। ‘ভাড়াটে খুনি’ ছবিতে নিজেকে উপস্থাপন করেন অনেক সাহসী ও আকর্ষণীয় করে। তবে শুধু সংক্ষিপ্ত পোশাক প্রদর্শন নয়, অভিনয় প্রতিভাতেও সাহারার ছিলেন দুর্দান্ত। যার ফলাফল, নতুন নতুন চলচ্চিত্র হাতে পান সাহারা।

২০০৬ সালে শীর্ষ নায়ক শাকিব খানের বিপরীতে ‘প্রিয়া আমার প্রিয়া’ ছবিতে অনবদ্য অভিনয় করে সেরা নায়িকার আসন দখল করে নেন তিনি। এরপর প্রচুর হিট ছবি উপহার দিতে থাকেন। তারপরই হঠাৎ করে কোথায় যেন হারিয়ে গেলেন জনপ্রিয় অভিনেত্রী।

অভিনেত্রী সাহারার প্রকৃত নাম নুরজাহান আক্তার রুনা। অনেকদিন থেকেই চলচ্চিত্রে নেই। নেই কোনো খবরে। ২০১৫ সালে বিয়ে করেন মাহবুবুর রাহমান মনিরকে। যদিও শোবিজে গুজব প্রচলিত আছে যে ২০১৩ সালে গোপন বিয়ের পর অনেকটা গৃহবন্দি হয়ে পড়েন সাহারা। তবে ১৫ সালের জুলাই মাসে বিবাহোত্তর অনুষ্ঠানের আয়োজন করে বিয়ের আনুষ্ঠানিক ঘোষণা দেন এই অভিনেত্রী। একই বছর জানা গিয়েছিল সাহারা পোশাকের ব্যবসায় নিজেকে যুক্ত করেছেন।

তবে সাহারার একটি ঘনিষ্ঠ সূত্র জানিয়েছে, সাহারা এখন পুরো সাংসারিক। পাশাপাশি একটি ব্যবসাপ্রতিষ্ঠান রয়েছে তার। পুলিশ প্লাজায় অবস্থিত এই কাপড়ের এই ব্যবসাপ্রতিষ্ঠানের নাম ‘সাহারা ফ্যাশন হাউজ’।

সাহারার সাথে যোগাযোগ করা হলে তার ব্যক্তিগত ফোনে কথা হয় স্বামী মাহবুবুর রাহমান মনিরের সাথে। তিনি বলেন, ‘সাহারা এখন সংসারী। সংসার নিয়েই সে ব্যস্ত। অন্যদিকে এখন সময় দেওয়া তার পক্ষে সম্ভব নয়। তার ড্রেসের দোকান রয়েছে সেটাও আমাকে দেখাশোনা করতে হয়।’ আপাতত কোনোভাবেই চলচ্চিত্রে ফিরছেন না বলেও জানান মনির।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *